সিদ্ধিরগঞ্জে ব্যক্তিকেন্দ্রীক কমিটি করার প্রচেষ্টা

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০০ পিএম, ১ সেপ্টেম্বর ২০২১ বুধবার

সিদ্ধিরগঞ্জে ব্যক্তিকেন্দ্রীক কমিটি করার প্রচেষ্টা

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি গঠনের অনেকদিন পেরিয়ে গেলেও নানা কারণে তাদের অধীনে থাকা থানা উপজেলা পৌরসভা কমিটি গঠন করা হয়ে উঠেনি। তবে এবার জোর সম্ভাবনা রয়েছে কমিটি গঠনের। সেই লক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জের অন্যান্য থানার মতো সিদ্ধিরগঞ্জেও নতুন কমিটি আসছে। তবে এই সিদ্ধিরগঞ্জ থানা বিএনপির কমিটিকে ব্যক্তিকেন্দ্রীক কমিটি করা প্রচেষ্টা চলমান রয়েছে।

জানা যায়, সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় আহবায়ক হিসেবে আলোচনায় ছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক মনিরুল ইসলাম রবি ও আব্দুল হাই রাজু। এই দুইজনেই যোগ্যতার দিক দিয়ে এগিয়ে রয়েছেন। তারা দুইজনেই হেফাজতের মামলায় আসামী হয়ে পলাতক রয়েছেন। এর আগেও সিদ্ধিরগঞ্জ বিএনপিতে দায়িত্ব পালন করেছিরেন মনিরুল ইসলাম রবি। কিন্তু তাকে এবারের কমিটিতে বাদ দেয়া হচ্ছে।

ঘোষণা হ‌তে যাওয়া এই ক‌মি‌টিতে সি‌দ্ধিরগঞ্জ বিএন‌পির আহ্বায়ক হিসেবে আব্দুল হাই রাজ্ ুএবং সদস‌্য সচিব হি‌সে‌বে শাহ আলম হীরার নাম প্রস্তাব ক‌রে‌ছেন অধ্যাপক মামুন মাহমুদ। আর এ নি‌য়ে সৃষ্টি হয়েছে তুমুল সমা‌লোচনা। তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা সদস্য সচিব হিসেবে কারাগারে থাকা কাউন্সিলর ইকবাল হোসেনকে চাইলেও অধ্যাপক মামুন মাহমুদ তাদের বাইরে গিয়ে শাহ আলমকে চাচ্ছেন।

যে শাহ আলম হীরা নিজে একজন আওয়ামী লীগ কর্মী। তিনি শামীম ওসমান সমর্থক গোষ্ঠীর একজন কর্মী হিসেবে সিরাজ ম-লের সঙ্গে কাজ করে থাকেন। এছাড়া তার মা রাশেদা বেগম সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক। ভাই বরকত আলী বাপ্প জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। তার আরেক ভাই খোরশেদ আলম মনা শ্রমিক লীগ ও আন্ত:জেলা ট্রাক চালক সাইলো শাখার যুগ্ম সম্পাদক। এছাড়াও শাহ আলম হীরার স্ত্রীর বড় ভাই সালাম মাহমুদ নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দীর্ঘদিন ধরেই দায়িত্ব পালন করছেন।

তৃণমূল বলছে, বিগত দিনে একটি মামলা, জেলও খাটেনি হীরা। এমনকী কোনো রকম কর্মসূচি পালন করতেও তাকে দেখা যায়নি। বরং দলটির নেতাকর্মীরা যখন মামলা খেয়ে ফেরারি হয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন, তখন শাহ আলম হীরা আওয়ামী লীগের হয়ে বিভিন্ন ব্যবসা বাণিজ্য করে এবং গায়ে হাওয়া লাগিয়ে ঘুরে বেড়িয়েছেন। যা পুরো সিদ্ধিরগঞ্জে ওপেন সিক্রেট।

ফলে জেলা বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের এক অংশ চাচ্ছেন হীরাকে পদায়ন করতে আরেক পক্ষ চাচ্ছেন হীরাকে পদের বাইরে রাখতে। যা নিয়ে নেতাদের মধ্যে চলছে মর্যাদার লড়াই।

এদিকে সিদ্ধিরগঞ্জে জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক অ্যাডভোকেট মাহফুজুর রহমান হুমায়ুনকে টিম লিডার ও জেলা বিএনপির সদস্য অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, একরামুল কবির মামুন, ইউসুফ আলী ভূঁইয়া, মোস্তাকুর রহমানকে সদস্য করে ৫ সদস্য বিশিষ্ট উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছিল। কিন্তু তাদের তেমন কার্যকরিতা দেখা যায়নি।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও