পদের জন্য বার বার নেতা পরিবর্তন

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০৩ পিএম, ১ সেপ্টেম্বর ২০২১ বুধবার

পদের জন্য বার বার নেতা পরিবর্তন

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির অধীনে থাকা অন্যান্য এলাকার কমিটির মতো রূপগঞ্জ উপজেলা বিএনপিরও নতুন কমিটি আসার সম্ভাবনা রয়েছে। আর এই কমিটিতে বিতর্কিত নেতাকে পদায়নের প্রচেষ্টা চলমান রয়েছে। আহবায়ক নিয়ে কেউ আপত্তি না করলেও সদস্য সচিব পদের ব্যক্তিকে নিয়ে অনেকেই আপত্তি তুলেছেন।

নেতাকর্মীরা জানান, এত আন্দোলন সংগ্রাম এত কর্মসূচীতে সায়েমকে রাজপথে দেখা না গেলেও কমিটির সংবাদে এই ব্যক্তি নড়েচড়ে বসেন। এবারো তার ব্যতিক্রম নয়। এবার জেলা স্বেচ্ছাসেবক দল থেকে তিনি নেমেছেন থানা বিএনপির কমিটির জন্য। এর আগেও তিনি জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের পদ নিশ্চিত বলে প্রচার করেছিলেন। শেষতক পদের অনিশ্চয়তায় জিয়া পরিবারের এক পুত্রবধুর নির্দেশে পদ পেয়ে যান সায়েম, এমনটাই তখন রূপগঞ্জে গুঞ্জন উঠে। এরপর থেকে আর কাউকে পরোয়া করেন না সায়েম। রাজপথে তাই পালন করেন না কর্মসূচীও।

এর মধ্যে রূপগঞ্জের ৭ টি ইউনিয়নের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের ১৪ জনের মধ্যে ১৩ জন সায়েমের পদের বিপক্ষে সুপারিশ করেছেন। তারা অন্য প্রার্থীর পক্ষে সুপারিশ করেছেন। তাদের মতে, এমন নেতা যিনি দলের মানুষের খোঁজ খবরনেন না, দলের প্রয়োজনে রাজপথে থাকেন না, শুধুমাত্র নেতাদের ঘরে গিয়ে ঘরোয়া রাজনীতি করেন এমন নেতাকে তারা দলের দায়িত্বে দেখতে চাননা।

সায়েম মূলত এখন বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদের কথায় রাজনীতি করছেন। তার নির্দেশে বিভিন্ন ইউনিট কমিটি দিচ্ছেন সায়েম। এর আগেও জেলা ছাত্রদলে দায়িত্ব পালনকালে তার বিরুদ্ধে পদ বাণিজ্যের নানা অভিযোগ উঠেছিল। সম্প্রতি জেলা বিএনপির কমিটি হবার পর থেকে আহবায়ক তৈমুর আলম খন্দকারের পিছু ধরেন সায়েম। এর আগে বার বার নেতা বদল করতে পটু এই সায়েম ছিলেন কাজী মনিরুজ্জামানের সাথে। এর আগেও একাধিক নেতা বদল করেছেন তিনি। নিয়মিত এখন তৈমুরের কাছে হাজিরা দেয়াই হচ্ছে সায়েমের রাজনৈতিক হাতিয়ার।

বিএনপি নেতাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, রূপগঞ্জ উপজেলায় সদস্য সচিব পদ নিয়ে দেখা দিয়েছে নানা প্রশ্ন। এখানে বিতর্কিত নেতা এস এম সায়েম যিনি জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি তাকেও সদস্য সচিব করার চেষ্টা চলছে। সায়েম নিজেই জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের কমিটি গঠন করতে পারেনি। উপরন্তু সোনারগাঁও সহ বিভিন্ন কমিটি দেওয়ার জন্য মোটা অংকের লেনদেনের অভিযোগ রয়েছে। ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক থাকা সময়েও রয়েছে তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ। কিন্তু তার পরেও মোটা অংকের টাকা বিনিময়ে সার্চ কমিটির প্রধান আবদুল হাই রাজু সহ অন্যরা মিলে সায়েমের নাম প্রস্তাব করেন।

তাছাড়া ‘থাই ডন’ অথবা ক্যাসিনো কিং বলে পরিচিতি সেলিম রয়েছেন কারাগারে। এই সেলিম সায়েমের ভাই। তার অনেক ঘটনার সাক্ষী চাচাতো ভাই সায়েম। সায়েম তার প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করতেন বলে প্রচার থাকলেও রূপগঞ্জের মানুষের কাছে দুজন ব্যবসায়ীক অংশীদার হিসেবে পরিচিত। এলাকাবাসীর কাছে অবশ্য এক যুগ আগেও সেলিম প্রধানের পরিচয় চাঁন মিয়ার ছেলে সেলিম মিয়া ছিল। কয়েকশ’ কোটি টাকার মালিক হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সেলিম মিয়া হয়ে যান সেলিম প্রধান। এদিকে পৈতৃক বাড়ি জরাজীর্ণ থাকলেও গাউছিয়া থেকে অল্প দূরেই ভুলতা ফ্লাইওভারের শেষ মাথায় সাওঘাট এলাকায় সেলিম প্রধানের সেই আলোচিত ‘জাপান বাংলাদেশ সিকিউরিটি প্রিন্টিং অ্যান্ড পেপারস’ নামের বহুতল প্রতিষ্ঠানটি এখনো আছে। সায়েম নিজেও জাপান-বাংলাদেশ সিকিউরিটি প্রিন্টিংয়ের পরিচালক ছিলেন। স্থানীয়রা জানান, সায়েম এখনো পরিচালক হিসেবে আছেন তবে তিনি এখন কিছুটা গোপনে রয়েছেন। এলাকাবাসী জানান, হঠাৎ সেলিমের পরিবর্তন ছিল চোখে পড়ার মতো। এলাকায় আসতেন বছরে ৩-৪ বার। সঙ্গে থাকত দামি গাড়িবহর, অস্ত্রধারী বডিগার্ড। তার প্রভাবে সায়েমও ফুলেফেপে উঠেছিলেন।

ইতোমধ্যে রূপগঞ্জ উপজেলার সদস্য সচিব হিসেবে থানা কমিটির সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা কমিটির সদস্য বাছিরউদ্দিন বাচ্চুকে পদায়িত করার জন্য জেলার আহবায়কের কাছে আবেদন করা হয়েছে। এতে কায়েতপাড়া ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি সেলিম আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক, ভুলতার সভাপতি আব্বাস উদ্দিন ভূইয়া, সাধারণ সম্পাদক রমিজউদ্দিন, গোলাকান্দাইলের সভাপতি গোলাম মোস্তফা, দাউদপুরের সভাপতি হুমায়ূন কবির ভূইয়া, মুড়াপাড়ার সেক্রেটারী শহীদুল্লাহ ভূইয়া, চনপাড়ার সভাপতি হারুন অর রশিদ, সাধারণ সম্পাদক আবদুল হালিম, রূপগঞ্জ ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি বাছিরউদ্দিন বাচ্চু ও সেক্রেটারী হাবিবুর রহমান বাদল সাক্ষর করেছেন। তাছাড়া সার্চ কমিটি সায়েমের নাম বাদ দিলেও অনেকটা অগঠনতান্ত্রিকভাবেই সায়েমের নাম প্রস্তাব করা হয়েছে।

এদিকে রূপগঞ্জে জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আঃ হাই রাজুকে টিম লিডার করে জেলা বিএনপির সদস্য হাজী সেলিম হক, কামরুজ্জামান মাসুম ও জুয়েল আহমেদকে সদস্য করে উপ কমিটি গঠন করা হয়েছিল। যাদের বিরুদ্ধে এলাকার নেতাকর্মীদের সাথে যোগযোগ না করেই প্রতিবেদন জমা দেয়ার অভিযোগ রয়েছে।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও