চমক শেষে মনোনয়ন পাবেন আইভী

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:০৫ পিএম, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ মঙ্গলবার

চমক শেষে মনোনয়ন পাবেন আইভী

ধৈর্য মানুষকে মহৎ করে। ধৈর্য একটি মহৎ গুণ। কথাগুলো মনীষীদের। ডা. আইভী সমস্ত অপপ্রচারের ব্যাপারে নিরবতা পালন করছেন। তিনি বিশ্বাস করেন আল্লাহপাক তাঁকে ধৈর্যের পুরস্কার দিবেন। মিডিয়ার সামনেও মুখ খুলছেন না। শুভাকাঙ্খিদের প্রশ্নবানে জর্জড়িত হয়েও মেয়র মুচকি হেসে সব এড়িয়ে যান। দিনের বিভিন্ন সময়ে কোন এলাকায় গেলে তিনি সাধারণ ভোটারদের প্রশ্নের মুখোমুখি হলে এই বলে সান্তনা দেন যে, ধৈর্য ধরে আছি। ধৈর্যের পরীক্ষা দিচ্ছি। আল্লাহ আমাকে পুরস্কৃত করবেন। তবে নির্বাচনে অনেকেই মনোনয়ন চাইবে। এমন ব্যক্তিও মেয়র প্রার্থী হতে পারে-যাকে দেখে শহরবাসী চমকে যাবে। সামনে চমক অপেক্ষা করছে। আমি দলের প্রতি অনুগত। আমি মনোনয়ন পাব। আমার দৃঢ় বিশ্বাস দল আমাকে মূল্যায়ন করবে।

জানা গেছে, নাসিক নির্বাচনের সম্ভাব্য সময়কাল ডিসেম্বর মাস। ২০২২ সালের ৭ ফেব্রুয়ারী সিটি করপোরেশন পরিষদের মেয়াদ শেষ হবে। নির্বাচিত পরিষদের মেয়াদ শেষ হওয়ার ৯০ দিন আগে নির্বাচন করার নিয়ম। সে কারণেই ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে নাসিক নির্বাচন সম্পন্ন করতে হবে। নইলে পরিষদের মেয়াদ ফুরিয়ে গেলে আবার শুরু হবে প্রশাসক নিয়োগের যন্ত্রণাদায়ক অধ্যায়। প্রশাসক নিয়োগ হোক এমনটা কেউ চায় না। তাই নির্বাচনটাই দ্রুত এগিয়ে আসছে।

এদিকে, নির্বাচনী ট্রেন যতই সামনে আসছে ততই নতুন নতুন যাত্রী ভিড় করছেন প্লাটফর্মে। আমজনতার নজর নগরীর উন্নয়ন ও উন্নয়নের নেপথ্য কারিগরদের দিকেই। সাধারন ভোটাররা নির্বাচনী ট্রেনের নতুন যাত্রীদের নিয়ে কোন আগ্রহ দেখাচ্ছেন না। অথচ নতুন নতুন মুখ এমনকি নতুনদের সাথে মিশে গিয়ে পুরনো মুখও বলছেন নানান কথা। ফুটপাতে মজমা জমিয়ে রসালো ও মজার মজার কথা বলে ওষুধ ও বাতের বড়ি বিক্রি করনেওয়ালাদের মতই মজমা জমাচ্ছেন অনেকে।

নির্বাচন বিষয়ক মজমাগুলোতে আল্লাহ-খোদাকে সাক্ষী রেখে ও অনেক দোহাই দিয়ে নিজেদের পরিকল্পনা পেশ করছেন। পরিকল্পনার মূল বিষয় নাসিক মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর বিরোধীতা। প্রভাবশালী নেতারা হাত-পা ছুঁড়ে কণ্ঠে বিশেষ ঝাঁজ এনে বলে বেড়াচ্ছেন, এবারের নির্বাচন তাঁর নসীবে ঘটবে কিনা সন্দেহ। সে কিছুতেই আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পাবে না। নৌকা তাঁর কপালে নেই। নৌকার ভরসায় থাকলে থাকুক। শুধু নৌকা পেলেই নির্বাচনে পাশ করতে পারবেন না। কারণ জনগণ তার পাশে থাকবে না। জনগণ যার পাশে থাকবে সেই নির্বাচনে জয়ী হবে। আইভীর পাশে জনগণ নেই।

সার্বিক পরিস্থিতি দিনে দিনে তিক্ততার দিকে যাচ্ছে। এ বিষয়ে বিশ্লেষকরা বলছেন, নির্বাচনের শিডিউল বা তফসিল ঘোষণা হয়নি এখনো। এত আগেই যারা মাঠ গরম করছেন আর যাই হোক তারা ততটা কাজের লোক নন, যতটা নিজেদেরকে দাবি করছেন। তারা বরং মাঠ গরম করে উত্তেজনা ছড়াতে সিদ্ধহস্ত।

হৈ হুল্লোর চিৎকার চেঁচামেচি এমনকি মারদাঙ্গা পরিস্থিতির জন্মদিতে ওদের এক ঘন্টা সময়ও লাগেনা। এটাতো আশি-নব্বই দশকের টেকনিক। বর্তমান ডিজিটাল যুগে এসব ছদর-ফদর চলে না। মানুষ বুঝতে শিখেছে। আগের চেয়ে শিক্ষার হারও বেড়েছে। হাতে হাতে উন্নত প্রযুক্তির সুবিধা সম্পন্ন মুঠোফোন। চোখের পলকে ছেলে মেয়েরা দুনিয়ার যে কোন প্রান্তের খবর জেনে যায়। আছে ফেসবুকের মত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। যেখানে পুরনো দিনের মাস্তান টাইপের মানুষেরা নিতান্তই অসহায়। তাই তারা এখন ষাটের ঘরে পা রেখেও ধমকে ধমকে কথা বলেন। বক্তৃতা করলে মনে হবে ঝগড়া করছেন। এদের দিয়ে সমাজ বদল কখনো হবে না। আশা করাও ঠিক নয়। শুধুই লাফালাফি সার!

পর্যবেক্ষক মহলের মতে, ডা. আইভীর হাতের বেশ কিছু বড় প্রকল্পের কাজ শেষের দিকে। কোভিড মহামারীর জন্য এ সকল প্রকল্পের কাজ ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। দীর্ঘসূত্রিতা সৃষ্টি হয়েছে। তবুও তিনি কাজগুলো সম্পন্ন করতে আশাবাদী। দৃশ্যত; বাবুরাইল লেক, শেখ রাসেল পার্ক, সিদ্ধিরগঞ্জের সৌন্দর্য্য বর্ধন প্রকল্প, মদনগঞ্জ ওয়েলফেয়ার মাঠসহ অন্যান্য বড় প্রকল্পগুলো যখন সাধারণ মানুষের চোখের সামনে দৃশ্যমান হয়ে উঠছে এবং মানুষ বিমোহিত হচ্ছে-তখনি মেয়রের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের যজ্ঞ শুরু করে দিল প্রতিপক্ষ। ওরা এই কাজটি ইচ্ছে করেই করছে। ওরা ভোটারদের দৃষ্টি অন্যদিকে ঘুরিয়ে দিতে এবং ভোটারদের মাথায় অন্য চিন্তা ঢুকিয়ে দিতেই এসব করছে। এতে একঢিলে দুই পাখি মারতে চাইছে ওরা। প্রথমত; ভোটারদের সামনে নানান গরম গরম বক্তব্য দিলে ভোটাররা ভাববে যা রটে তা কিছুটা বটে। মেয়র মনোনয়ন পাবে কি পাবে না নিয়ে সবাই ভাববে। এতেকরে মেয়রের উন্নয়নের দিকে কারো নজর পড়বে না। দুই ভোটারদের সন্দিহান করে দিতে পারলে ভোটাররা দ্বিধাদ্বন্দ্বের চক্করে পড়ে যাবে। তখন ভোট সঠিক যায়গায় পড়বে না। আখেরে মেয়র আইভীর ক্ষতিই হবে। কিন্তু নারায়ণগঞ্জ মহানগরের মানুষ কি আর এতই বোকা রয়ে গেছে। তাঁরা ভালই জানে কাকে ভোট দিলে কি হবে।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও