খান মাসুদের বিরুদ্ধে জিডি

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:২৫ পিএম, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ বৃহস্পতিবার

খান মাসুদের বিরুদ্ধে জিডি

বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের যুগ্ম পরিচালকসহ সংশ্লিষ্ট দফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের গালাগালসহ হুমকী প্রদানের অভিযোগে কথিত যুবলীগ নেতা খান মাসুদের বিরুদ্ধে জিডি দায়ের করেছে বিআইডব্লিউটি নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দর কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার ৯ সেপ্টেম্বর বিআইডব্লিউটি নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নাহিদ হোসেন বাদি হয়ে জিডিটি দায়ের করেন।

জিডিতে খান মাসুদ ও তার অনুগামীদের বিরুদ্ধে উস্কানীমূলক বক্তব্য প্রদান করে সরকার তথা বিআইডব্লিউটিএ’র চলমান উচ্ছেদ অভিযান কার্যক্রমের বিরুদ্ধে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করার অভিযোগ আনা হয়েছে। এতে সরকার নদীর গতিধারা বা প্রবাহ স্বাভাবিক রাখা ও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষাকল্পে নদীর সীমানা পিলারের অভ্যন্তরে ওয়াকওয়ে, গাইডওয়াল ও বনায়নের কার্যক্রমে বিঘœ সৃষ্টি এবং আদালতের নির্দেশনা অবমাননার শামিল বলে উল্লেখ করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ বিআইডব্লিউটিএ’র পরিচালক মাসুদ কামালের অপসারনের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। ৬ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় বন্দর খেয়াঘাটস্থ বেবি-সিএনজি ষ্ট্যান্ডে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

যুবলীগ নেতা সামসুল হাসানের সঞ্চালনায় ও জেলা যুবলীগ নেতা খান মাসুদের সভাপতিত্বে আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন বন্দর থানা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সালিমা হোসেন শান্তা, কলাগাছিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক সোয়েব মোহাম্মদ লিটন, কদম রসুল কলেজের সাবেক ভিপি যুবলীগ নেতা মাইকেল বাবু, যুবলীগ নেতা পারভেজ হাসান প্রমুখ।

জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জের বন্দরে শীতলক্ষ্যা নদী দখল করার জন্য সেখানে বাশ দিয়ে একটি অস্থায়ী ব্যানার সাটানো হয়েছিল। আর এতে ছবি সংযুক্ত করে দেওয়া হয়েছিল এমপি সেলিম ওসমান ও শামীম ওসমানের ছবি। এছাড়াও ছিল বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ রশিদের ছবি। বিআইডব্লিউটিএ কর্মকর্তারা বলছেন, মূলত প্রভাবশালী এমপিদের ছবি সাটিয়ে নদী দখল করতেই ওই ব্যানার সাটানো হয়েছিল। আর এ কাজটি করেছিল বন্দরের আলোচিত সমালোচিত যুবলীগ নেতা খান মাসুদ।

জানা যায়, শনিবার সকাল ১১টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত শীতলক্ষ্যা নদীর বন্দর ও শহরের কয়েকটি এলাকায় ৩০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দর কর্তৃপক্ষ। দুপুরের দিকে উচ্ছেদকারী দল বন্দরের ১ নম্বর খেয়া ঘাটে উচ্ছেদ করতে গিয়ে সেখানে একটি রাজনৈতিক ব্যানার অপসারণের সময় স্থানীয় নেতাকর্মীরা প্রথমে বাধা দেন। পরে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ ব্যানারটি ভেকু দিয়ে ভেঙে ফেলে।

স্থানীয় নেতাকর্মীদের অভিযোগ, ব্যানারটি না ভেঙে খুলে নেওয়ার সময় দিতে বার বার অনুরোধ করা সত্ত্বেও বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ ওই ব্যানারটি ভেকু দিয়ে ভেঙে দেয়।

বিআইডব্লিউটিএর নারায়ণগঞ্জের উপপরিচালক মাসুদ কামাল জানান, উচ্ছেদ কার্যক্রম হয়েছে আইন অনুযায়ী ও ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে। ব্যানার ভাঙার বিষয়টি নিয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করা হচ্ছে। মূলত বন্দর ঘাটের অবৈধ দখলদাররা বিষয়টি নিয়ে মিথ্যা অপপ্রচার করছে। এগুলো সাজানো নাটক।

আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে যুবলীগ নেতা খান মাসুদ বলেন, নারায়ণগঞ্জ বিআইডব্লিউটিএ’র উচ্ছেদ অভিযানের নামে কালো অভিযান ছিল এটা। আমার ব্যাক্তি খান মাসুদের ছবি সম্বলিত ব্যানার ছিড়লে প্রতিবাদ করতাম না। আমি নগন্য একজন কর্মী। কিন্তু জাতির স্বপ্ন দ্রষ্টা জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি, মানবতার মা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি, গণমানুষের নেতা একেএম শামীম ওসমানের ছবি সম্বলিত ব্যানার দুমড়ে-মুচড়ে ছিড়ে ধ্বংস করেছে বিআইডব্লিউটিএ’র পরিচালক মাসুদ কামাল বাহিনী। এটা একটা ষড়যন্ত্র।

উপস্থিত ছিলেন বন্দর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোঃ ফয়সাল কবির, ডালিম হাসান, শেখ মমিন, আরিফুল ইসলাম হীরা, মাকসুদ হাসান, বন্দর থানা মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্মলীগ এর সদস্য রাজু আহমেদ, আকিব হাসান রাজু,সায়মন খান, পারভেজ, মোখলেস,


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও