নির্বাচনী ডামাঢোলে জয়োধ্বনি

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৭:৪১ পিএম, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ রবিবার

নির্বাচনী ডামাঢোলে জয়োধ্বনি

আসন্ন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন আগামী ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হবে নির্বাচন কমিশন এমন ঘোষণা দিয়েছে আরো এক মাস আগেই। আর এ ঘোষণায় সম্ভব্য কাউন্সিলর প্রার্থীরা তোড়জোড় শুরু করে দিয়েছে। তবে এতেদিন বর্তমান মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর তেমন কোন পদক্ষেপ দেখা না গেলেও আজ ডামাঢোল বাজলো। বক্তব্যেও ছিল নির্বাচনের কর্মকান্ডের অগ্রিম বার্তা।

২৫ সেপ্টেম্বর শনিবার বিকেলে সিটি করপোরেশনের ১৮নং ওয়ার্ডে শহরের শীতলক্ষ্যা এলাকায় মুক্তিযোদ্ধা সড়কের উদ্বোধন উপলক্ষ্যে অনুষ্ঠানে মেয়র আইভীর নির্বাচনের সূচনা করতে দেখা যায়। যদিও সভায় তিনি ঘোষণা দিয়েছেন, ‘যতক্ষণ পর্যন্ত আমার নেত্রী আমাকে না বলবে ততক্ষণ পর্যন্ত আমি নির্বাচনী সভা শুরু করবো না।’

গত ২৩ আগস্ট নির্বাচন কমিশনের ৮৪তম সভায় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন আয়োজনের প্রস্তুতি ও সার্বিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। এতে নির্বাচন কমিশন সচিব মো হুমায়ুন কবীর খন্দকার জানান,‘সভায় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন সহ বেশ কিছু নির্বাচন আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে কমিশন সভায় কোন নির্বাচন কবে দেওয়া হবে সেই বিষয়ে আলোচনা করা হবে।’

মুক্তিযোদ্ধা সড়ক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সরেজমিনে দেখা যায়, ‘অনুষ্ঠানের শুরুর আগেই বাদ্য বাজনা ও ফুল নিয়ে অপেক্ষা করতে থাকেন এলাকাবাসী। মেয়র আইভীর সরকারি গাড়ি আসার সঙ্গে সঙ্গে বাদ্য বাজনা বাজতে শুরু হয়। আর মানুষের মুখে রব উঠে যায় মেয়র আসছে, মেয়র আসছে। মেয়রকে বরণ করতে এলাকাবাসী ও কাউন্সিলর গাড়ির কাছে এগিয়ে যান। স্লোগান দিতে শুরু করেন, মেয়র আইভীর আগমন, শুভেচ্ছার স্বাগতম। শুভেচ্ছার স্বাগতম, আইভীর আপার আগমন। এছাড়াও স্লোগান দেওয়া হয় জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু। এসময় মেয়র আইভীর মঞ্চের যাওয়ার রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে থাকা নারী পুরুষ ও শিশুরাও ফুল ছিটিয়ে দিতে শুরু করেন। এ যেন পুষ্প বৃষ্টিতে রূপান্তরিত হয়। এসময় হিন্দু মসুলিম সকলের নমস্কার ও সালামের প্রতিউত্তরে তিনিও সালাম ও নমস্কার জানান।

সভা শুরুর আগে মঞ্চে বড় পর্দায় দেখানো হয় মেয়র আইভীর বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ডের স্থির চিত্র। যেগুলো বাস্তবায়ন করেছেন বর্তমান কাউন্সিলর কবির হোসেন। ওই ভিডিও চিত্রের গানে কাউন্সিলর পদে কবির হোসেন নির্বাচনের ভোট চান। এসময় হাস্যোজ্জ্বল ছিলেন মেয়র আইভী।

প্রায় এক মাস পরই এমন কর্মসূচিতে দেখা গেছে মেয়র আইভীকে। যেখানে এলাকাবাসীর উপস্থিতিও ছিল তুলনামূলক ভাবে চোখে পড়ার মতো। আর এ সুযোগে তিনি নির্বাচনের অগ্রিম ঘোষণাও দেন।

মেয়র আইভী বলেছেন, ‘যতক্ষণ পর্যন্ত আমার নেত্রী আমাকে না বলবে ততক্ষণ পর্যন্ত আমি নির্বাচনী সভা শুরু করবো না। যেহেতু মেয়রের প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করতে হবে অর্থাৎ দলীয় প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করতে হবে এই দল আমাকে যতক্ষণ পর্যন্ত ননিনেশন না দিবে ততক্ষণ পর্যন্ত আমি দলীয় প্রচারণা চালাতে পারবো না বা আমি করবো না। কিন্তু আমি আপনাদের সাথে আমার বিভিন্ন ধরনের কাজকর্ম নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় যাবো কথা বলবো। তারই ধারাবাহিকতায় এখানে এসে মুক্তিযোদ্ধাদের নামে সড়ক উদ্বোধন করেছি।’

এলাকাবাসী বলছেন, ‘আগামী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র আইভীই নৌকা প্রতিক পাবেন। কারণ বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রিয় ব্যক্তি হয়ে উঠেছেন মেয়র আইভী। তাঁর কর্মকা- ও আচার ব্যবহারের জন্য তার প্রতিদন্ধী খোঁজে পাওয়া কঠিন।’ ফলে মেয়র আইভী সরাসরি ঘোষণা না দিলেও এলাকাবাসী নিশ্চিত হিসেবেই নির্বাচনের বার্তা নিয়েছেন। আগামীতে মেয়রকেই নির্বাচিত করবেন অনেকেই সেটা বলছিলেন।’

প্রসঙ্গত নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের সব শেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০১৬ সালের ২২ ডিসেম্বর। প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয় ২০১৭ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি। সেই হিসাবে এই সিটি করপোরেশনের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ২০২২ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি।

নির্বাচন কমিশন জানান, সিটি করপোরেশনের মেয়াদ শেষ হওয়ার পূর্ববর্তী ১৮০ দিনের মধ্যে নির্বাচন আয়োজন করতে হয়। সেই হিসাবে গত ১১ আগস্ট থেকে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ক্ষণ গণনা শুরু হয়েছে। আইন অনুযায়ী ২০২২ সালের ৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে এই সিটিতে নির্বাচন আয়োজন করতে হবে।’


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও