সভাপতির সই ছাড়া নৌকার মনোনয়ন

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১২:০১ এএম, ১০ অক্টোবর ২০২১ রবিবার

সভাপতির সই ছাড়া নৌকার মনোনয়ন

আগামী ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য ইউনিয়ন পরিষদকে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে অনেক কলঙ্কজনক ঘটনা ঘটে গেছে। নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের অধীনে বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের সম্ভাব্য প্রার্থীদের নাম কেন্দ্রে জমা দেয়া হয়েছে। কিন্তু এই জমা দেয়ার ক্ষেত্রে যাদের নাম রাখা হয়েছে তাদের নিয়ে রয়েছে অনেক বিতর্ক। তাদের নামের সাথে যুক্ত রয়েছে কাউয়া হাইব্রীড বিশ্লেষণ। ফলে এসব নাম জমা দেয়ার ক্ষেত্রে স্বাক্ষর করেনি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তার স্বাক্ষর ছাড়াই এসকল নাম জমা দিয়েছেন সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদল।

জানা যায়, আলীরটেক ইউপি নির্বাচনের জন্য আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী রয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান মতিউর রহমান, সাবেক চেয়ারম্যান জাকির হোসেন ও সায়েম আহমেদ। কিন্তু এদের কেউই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত নেই। চেয়ারম্যান হওয়ার আশায় তারা আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছেন। আর এ বিষয়টি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে আব্দুল হাই মেনে নিতে পারেননি। তাই তিনি স্বাক্ষরও করেননি। কিন্তু তার স্বাক্ষর ছাড়াই এসকল নাম কেন্দ্রে জমা পড়েছে। শেষে কেন্দ্র মতিকে দিয়েছেন নৌকা প্রতীক।

এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই বলেন, তাদের নামের তালিকায় আমি স্বাক্ষর করি নাই। কারণ তারা প্রকৃত আওয়ামী লীগার না।

এদিকে গোগনগর ইউনিয়ন পরিষদে মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা জসিম উদ্দিন। কিন্তু তার নামটি না পাঠিয়ে নব্য আওয়ামী লীগার ব্যবসায়ী ফজর আলীর নাম পাঠানো হয়েছে। যা মেনে নিতে পারেননি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই। তিনি আলাদাভাবে জসিমউদ্দিনের পক্ষে চিঠি দিয়েছেন। পরে আওয়ামী লীগ তাকেই মনোনয়ন দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে আবদুল হাই বলেন, প্রকৃতপক্ষে জসিম উদ্দিন আওয়ামী লীগের একজন প্রবীণ নেতা। তার পরিবারে আওয়ামী লীগের রাজনীতির ইতিহাস রয়েছে। আর এসময়ে তাকে অসম্মান করা হচ্ছে যা নেতাকর্মীদের পীড়া দিচ্ছে।

অন্যদিকে জেলা আওয়ামী লীগকে সবচেয়ে বেশি কলঙ্কিত ঘটনা ঘটেছে কুতুবপুরে। কুতুবপুরে আওয়ামী লীগের সকল মনোনয়ন প্রত্যাশীকে পিছনে ফেলে বিএনপি নেতা মনিরুল আলম সেন্টুকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে কেন্দ্রে নাম পাঠানো হয়েছে। তিনি কবে আওয়ামী লীগে যোগদান করেছেন তা কেউ না জানলেও তার নামটি কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। কেন্দ্র সেন্টুকেই মনোনয়ন দিয়েছেন।

এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই বলেন, এটা খুবই দুঃখজনক ঘটনা। এখানে তো আমাদের আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীর অভাব ছিল না। একজন বিএনপি নেতার নাম কেন পাঠানো হবে। আসলে কিছু করার নেই। প্রভাবশালীরা রয়েছেন।

তার স্বাক্ষর ছাড়া নাম কেন্দ্রের নাম ছাড়া কেন্দ্রে নাম পাঠানো শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণ কিনা জানতে চাইলে আব্দুল হাই বলেন, এটা অবশ্যই শৃঙ্খলা ভঙ্গের মধ্যে পড়ে। এছাড়া যাদের নামে আমি সাক্ষর করি নাই তাদের কেউ তো আওয়ামী লীগ না। তাহলে তাদের নাম কেন কেন্দ্রে পাঠাতে হবে। আমাকে তো নেতাকর্মীদের কাছে জবাবহিদিতা করতে হয়।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও