এবারও দর্শনার্থী ব্যতিত লোকনাথ ব্রহ্মচারীর তিরোধান উৎসব

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১১:০১ পিএম, ২ জুন ২০২১ বুধবার

এবারও দর্শনার্থী ব্যতিত লোকনাথ ব্রহ্মচারীর তিরোধান উৎসব

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার বারদীতে অবস্থিত সনাতন ধর্মাবলম্বীদের আধ্যাত্মিক গুরু শ্রী শ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারীর ১৩১তম তিরোধান উৎসব স্থাগিত করা হয়েছে। তবে যথারীতি ভক্ত দর্শনার্থী ছাড়া ধর্মীয় রীতিনীতি মেনে পূজা অর্চনা করা হবে।

১ জুন মঙ্গলবার বিকেলে আশ্রম কর্তৃপক্ষের পাঠানো বার্তায় জানানো হয়, ‘আগামী ১৯ জৈষ্ঠ্য বৃহস্পতিবার শ্রী শ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী বাবার ১৩১তম তিরোধন উৎসব। কিন্তু মহামারী করোনা বিস্তার রোধ কল্পে উৎসব স্থগিত করা হয়েছে। শুধু মাত্র লোকনাথ মন্দিরের অভ্যন্তরে ভক্ত দর্শনার্থী ব্যতিত্ব পালন করা হবে। সকল ধরনের ধর্মীয় অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে। ঐদিন মন্দিরের প্রধান ফটক বন্ধ থাকবে। করোনা ভাইরাস রোধে মন্দিরে ভেতরে ও বাইরে ভক্ত দর্শনার্থীদের সমাবেত না হওয়ার জন্য বিনীত ভাবে অনুরোধ করা হলো। ভক্তদের অসুবিধার জন্য আন্তরিকভাবে দুঃখপ্রকাশ করছি।’

বারদী শ্রী শ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী আশ্রম পরিচালনা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক শিশির বলেন, ‘প্রতিদিনই অনেক ভক্ত মন্দিরে বাবার দর্শনের জন্য আসেন। কিন্তু দুঃখের বিষয় আমরা তাদের প্রবেশ করতে দিতে পারছি না। এ করোনা মাহামারীর জন্য আমরা ভক্ত দর্শনার্থীদের সমাগম যাতে না হয় সেজন্য প্রধান ফটকই বন্ধ করে রেখেছি। শুধুমাত্র আশ্রমের পূজারী, পরিচ্ছন্ন কর্মীরাই ভেতরে আছেন।’

তিনি বলেন, ‘এই যে মানুষ এসে ফিরে যায় বাবার দর্শন করতে পারে না এটা যে কত কষ্টের বলে বুঝানো যাবে না। দূর দূরান্ত থেকে গাড়ি করে চলে আসেন। মন্দিরের ভেতরে প্রবেশ করতে না পেলে মন্দিরের ফটকের সামনে বসে ছোট ছোট শিশুদের মুখে প্রসাদ দিচ্ছেন। এটা দেখে সত্যিই কান্না আসে। কিন্তু কি করার দেশের এ মহামারী সবাইকে মেনেই সর্তক থাকতে হবে। তাই সকলের কাছে অনুরোধ ঘরে বসে বাবা লোকনাথকে স্মরণ করুন। তিনিই এ মহা বিপদ থেকে আমাদের রক্ষা করবেন। আবার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে অবশ্যই মন্দিরে ভক্ত দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে। বাব লোকনাথ সকলের মঙ্গল করুক।’

প্রসঙ্গত এ নিয়ে দ্বিতীয় দফায় বারদীর লোকনাথ ব্রহ্মচারীর আশ্রমের তিরোধান দিবসে ধর্মীয় অনুষ্ঠান স্থগিত ও ভক্ত দর্শনার্থীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। গত ২০২০ সালে করোনা শুরুতে একই ভাবে উৎসব স্থগিত করা হয়। পরবর্তীতের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে কিছু দিনের জন্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে মন্দিরের প্রবেশের সুযোগ করে দেয়া হয়। তবে ফেব্রুয়ারিতে দ্বিতীয় দফায় করোনার সংক্রামণ বেড়ে গেলে আশ্রম বন্ধ ঘোষনা করা হয়। যা এখনও পর্যন্ত মন্দিরে কোন ভক্ত দর্শনার্থী প্রবেশ করতে পারেন না। তবে মন্দিরের পূজা আর্চনা স্বাভাবিক ভাবেই চলছে।’


বিভাগ : ধর্ম


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও