পূজোর রাতে ছিনতাইয়ের ভয়

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১১:১৩ পিএম, ১১ অক্টোবর ২০২১ সোমবার

পূজোর রাতে ছিনতাইয়ের ভয়

শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু হয়েছে সোমবার থেকে। কিন্তু রোববার রাত থেকে শহরে ঘুরে প্রতিমা দেখতে শুরু করেছেন ভক্ত দর্শনার্থীরা। তবে পূজাদেখায় ভয় হয়ে দাঁড়িয়েছে চোর ছিনতাইকারীরা। আর তাই বিগত বছরের মতো এবারও অবিলম্বে পূজার ৫দিন বঙ্গবন্ধু সড়কের নিতাইগঞ্জের ট্রাক সরিয়ে দেওয়ার আহবান জানিয়েছেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা।

সনাতন ধর্মাবলম্বীরা জানান, ‘শহরের মন্ডলপাড়া ব্রীজের পর থেকে নিতাইগঞ্জ হয়ে শীতলক্ষ্যা পর্যন্ত বেশ কয়েকটি মন্ডপে দুর্গাপূজা হয়। এসব মন্ডপের পূজা দেখতে এ ৫দিন লাখো ভক্ত দর্শনার্থী ভীড় করে। শুধু নারায়ণগঞ্জ নয় বিভিন্ন জেলা থেকে গাড়ি নিয়ে এসে নিতাইগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সড়কে পার্কিং করে মন্ডপ পরিদর্শনে বের হয় ভক্ত দর্শনার্থীরা। কিন্তু এবার পূজা শুরু হয়ে গেলেও ট্রাকগুলো সরিয়ে নেওয়া হয়নি। যার ফলে এ রাস্তায় সার্বক্ষনিক যানজট লেগেই আছে। আর সেই সুযোগে চোর ছিনতাইকারীরা সাধারণ মানুষের কাছ থেকে মূল্যবান সম্পদ ছিনিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। পূজায় এরকম থাকলে ভক্ত দর্শনার্থীরাও চুরি ছিনতাইয়ের শিকার হতে পারে।’

বিশুদ্ধ লোকনাথ পঞ্জিকা অনুযায়ী আগামী ১১ অক্টোবর ষষ্ঠীতে দেবীর দুর্গার বোধন, আমন্ত্রণ ও অধিবাসের মধ্যে দিয়ে শুরু হবে পাঁচদিনের শারদীয় দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা। ১২ অক্টোবর সপ্তমী, ১৩ অক্টোবর মহাষ্টমী ও কুমারী পূজা, ১৪ অক্টোবর মহানবমী এবং ১৫ অক্টোবর বিজয় দশমীতে প্রতিমা বিসর্জন ও বিজয়া শোভাযাত্রার মধ্যে দিয়ে শেষ হবে এই বর্ণিল উৎসব।

রোববার রাতে সরেজমিনে দেখা যায়, ‘পঞ্চমীতেই পূজা মন্ডপ পরিদর্শনে বের হয়েছেন অনেক ভক্ত দর্শনার্থী। ইজিবাইকে কিংবা রিকশা নিয়ে এক মন্ডপ থেকে অন্য মন্ডপ ঘুরে বেড়াচ্ছেন। কিছু মন্ডপ প্রস্তুতি শেষ না হলেও অনেক মন্ডপ ছিল প্রস্তুত। ষষ্ঠীর দিন থেকেই আলোকসজ্জা ও সাউন্ড সব কিছু ঠিক আছে কিনা দেখে নিচ্ছেন। এ সুযোগে মন্ডপে গিয়ে প্রতিম দেখে নিচ্ছেন ভক্ত দর্শনার্থীরা।’

তেমনি একজন সুভাশ সাহা। তিনি বলেন,‘ সোমবার সকালে গ্রামের বাড়িতে চলে যাবো পূজা করতে। আর ফিরবো দশমীর পর। ফলে শহরের পূজা মন্ডপগুলো দেখা হবে না। তাই পঞ্চমীতেই ছেলে মেয়েকে নিয়ে ঘুরতে বের হয়েছি। শহরের পূজা মন্ডপগুলো দেখে নিতে।’

তিনি বলেন, ‘উকিলপাড়া, আমলাপাড়া, রামকৃষ্ণ মিশন সহ আশে পাশের পূজামন্ডপ গুলোতে যেতে ভালো লেগেছে কিন্তু ভয় লেগেছে যখন নির্মাণাধীন মন্ডলপাড়া ব্রীজ পার হয়ে নিতাইগঞ্জের দিকে যাচ্ছিলাম। এ রাস্তায় পর্যাপ্ত আলো নেই এবং নিরাপত্তা নেই। তাছাড়া এলোপাথাড়ি ভাবে ট্রাক রেখে দেওয়া হয়েছে। বখাটে ছেলেরা এর আশে পাশেই নেশা করছি ও আড্ডা দিচ্ছে। প্রশাসনের এ বিষয়ে নজর দেওয়া উচিত।’

এদিকে এক ট্রাকগুলো বিভিন্ন জেলা থেকে আসে। ফলে এখানে কারা চুরি ছিনতাই করে সেটা তারা বলতে পারেনি। তবে চুরি ছিনতাই হওয়ার বিষয়ে স্বীকার করেছেন।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় পান-সিগারেট বিক্রেতা বলেন, ‘মাদক সেবীরা ট্রাকগুলোর পিছনে ফুটপাতে বসে আড্ডা দেয়। আর কিছু এখানে ওয়াসার পানির ট্যাংকির ভেতরে খালি জায়গার ভেতরে বসে। এরাই মূলত চুরি ছিনতাই করে। ট্রাকের চালক হেলপাররা দেখলেও কিছু বলে না। একটু অন্ধকার হলেই রাস্তা থেকে চাকু দেখিয়ে দুই ট্রাকের মাঝখানে চিপায় নিয়ে আসে। তখন ভয় দেখিয়ে টাকা, মোবাইল সহ সব কিছু রেখে দেয়।’

প্রজন্ম প্রত্যাশা পূজা উদযাপন কমিটির সহ সভাপতি অজয় সূত্রধর বলেন, ‘আমাদের পূজামন্ডপে যারা আসেন তারা মূলত বঙ্গবন্ধু সড়ক ধরেই আসেন। বলদেব জিউর আখড়া, প্রজন্ম প্রত্যাশা, ডালপট্টি, সুতারপট্টি সহ এসব এলাকার পূজাগুলো দেখতে আসা দর্শনার্থীদের গাড়িগুলো বঙ্গবন্ধু সড়কেই পার্ক করা হয়। কিন্তু এবার এখান থেকে ট্রাকগুলো এখনও সরিয়ে নেওয়া হয়নি। এতে করে ভক্ত দর্শনার্থীদের অনেক অসুবিধা হবে।’

অসুবিধা সম্পর্কে তিনি বলেন,‘এখানে রাত ৮টার পরই ট্রাকের চিপায় নিয়ে ছিনতাইকারীটা মানুষের টাকা পয়সা সহ মূল্যবান জিনিসপত্র রেখে দেয়। যখন-তখন চুরি হয়। আর পূজার সময় এতো মানুষের ভীড় হবে। এ ট্রাকগুলো সরিয়ে না দিলে এখানে চুরি ছিনতাই আরো বেশি হবে। আমরা চাই বিগত বছরের মতো প্রশাসন পূজার কয়েকদিনের জন্য এখান থেকে ট্রাকগুলো সরিয়ে দেওয়া হোক।’

বলদেব জিউর আখড়া ও শিব মন্দির কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বিকাশ সাহা বলেন, ‘এখানে ট্রাক স্ট্যান্ড থাকলে ঢাকা সহ বিভিন্ন জেলা থেকে আসা ভক্ত দর্শনার্থীরা আসতে পারবে না। এ রাস্তায় যানজট সৃষ্টি হবে। দুষ্কৃতিকারীরা এখানে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে পারে। আমরা এ বিষয়ে সদর থানার ওসিকে জানাবে যাতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়।’

প্রজন্ম প্রত্যাশা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি শংকর সাহা বলেন, ‘আমরা সদর থানার ওসিকে এ বিষয়ে জানাবো। তিনি যেন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়। তিনি ব্যবস্থা না নিলে আমরা এসপিকেও জানাবো।’

নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার (এসপি) জায়েদুল আলম বলেন, ‘সদর থানার ওসিকে বলে দিবো যাতে পূজার কয়েকদিন এখানে ট্রাক স্ট্যান্ড না থাকে। এগুলো যেন সরিয়ে দেয়।’


বিভাগ : ধর্ম


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও