সুস্থ্য থাকুন সেলিম ভাই, আপনাকে প্রয়োজন

স্যোশাল মিডিয়া ডেস্ক : || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৫৭ পিএম, ২ জানুয়ারি ২০২১ শনিবার

সুস্থ্য থাকুন সেলিম ভাই, আপনাকে প্রয়োজন

নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি ও ব্যবসায়ী নেতা সেলিম ওসমান বর্তমানে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইতে অবস্থান করছেন। সেখানে তাঁর সঙ্গে সাক্ষাৎ হয় ওই দেশে বসবাসরত নারায়ণগঞ্জের ব্যবসায়ী মাহতাব আহমেদের। তিনি তাঁর ফেসবুকে সেলিম ওসমান সম্পর্কে নিজের অভিজ্ঞতার বিষয় তুলে ধরেছেন। এর আগে শামীম ওসমান দুবাইতে গেলে সেখানেও তাঁর সঙ্গে ছবি দেখা যায়। শামীম ওসমানের প্রচেষ্টায় দুবাই থেকে মৃত একজন ব্যক্তিকে নারায়ণগঞ্জ পাঠানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়।

মাহতাব আহমেদ ফেসবুকে লিখেন, ‘সেলিম ভাই ব্যাস্ত মানুষ। উনি নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের পার্লামেন্ট মেম্বার। বিকেএমইএ এর সভাপতি। এফবিসিসিআই এর পরিচালক। এমন আরো বহু সংগঠনের উপদেষ্টা এবং বিভিন্ন সংস্থার সাথে কাজ করে যাচ্ছেন। উনি আমিরাতের আজমানে আসেন ব্যাবসায়ীক প্রয়োজনে। আসেন অল্প সময়ের জন্য। আসেন কিছুটা রেস্ট এর জন্য। যদিও রেস্ট করতে কখনো দেখিনি।’

‘সেলিম ভাই আসলে চেষ্টা করি দেখা করার। চেষ্টা থাকে উনার কথা শোনার। চেষ্টা থাকে কথা বলার। নারায়ণগঞ্জ নিয়ে যারা ভাবেন, যারা নারায়ণগঞ্জ নিয়ে চিন্তা করেন, তাদের এমনিতে-ই ভালো লাগে। আর নারায়ণগঞ্জ নিয়ে ভাবনা, আর নারায়ণগঞ্জ নিয়ে কিছু করার অন্যতম তালিকায় আছেন সেলিম ভাই। তাই ডাক পেলেই চলে যাই।’

‘শুনি, বলি, আবদার রাখি, পরামর্শ দেন, উনার চা উনার লাঞ্চ, ডিনার ধ্বংস করে উনার কাছে-ই আবদার রাখি। ডাকবাংলো পুলিশ ফাঁড়িটা সরিয়ে রাস্তাটা চওড়া করে দিন। দুইটা কলেজের ছাত্র ছাত্রীদের চলাচলে মহাসমস্যা। ওটা তো রোডস অ্যান্ড হাইওয়ের, পঞ্চবটি থেকে দুই দুই চার লেন হয়ে চাষাঢ়া আসছে। এসব থাকবে না। প্ল্যান পাশ হয়ে আছে। যে কোন সময়ে কাজ শুরু হবে। বন্দরে স্কুল কলেজে যথেষ্ট উন্নতি হয়েছে। কিন্তু স্কুল কমিটি আর শিক্ষা ব্যবস্থার খুব উন্নতি হয়েছে বলে আমাদের মনে হয় না। সরকারের নতুন নিয়মে আগের কমিটির অনেকে-ই বাদ পরে যাবে। নতুন কমিটি আসবে। তাহলে আপনার সময়ে যারা এ স্কুল থেকে বেরিয়ে আজ ভার্সিটি গন্ডি পেরিয়েছে, তাদের ধরে বসিয়ে দিন। অনেককে-ই বলেছি, সাহস করে না। কারণ তাদের বাবা, চাচা, মামা, খালু কমিটিতে আছে কিন্তু যোগ্য নয়। তাদের কাকা, মামা, খালুদের সরিয়ে আসতে শরম পাচ্ছে বা সাহস পায় না। জোর করে বসিয়ে সাহস দিন। কাজ হবে। শুরু করুন। বাকিরা ভয়ে সরে যাবে।’

‘তোমার কি? একবার সামনে গিয়ে ফেস করে দেখো। একদিকে পাহাড় ঠেলে সরাই। দেখি আরেক পাহাড় তৈরি হয়ে বসে থাকে। মাঝে মধ্যে ভাবি এসব ছেড়ে দেবো। তারপরও আশ্বাস করবো হবে। এজন্যই এ লোকটাকে বড় ভাল লাগে। আলীরটেক আধুনিকায়নের চিন্তা চলছে। বন্দরের বেশ কিছু নতুন প্রজেক্ট। এমন বেশ কিছু আলোচনা। উঠতে মন চায়না।’

‘এদিকে রাত প্রায় দেড়টা। সুস্থ থাকুন সেলিম ভাই। আপনাকে আমাদের প্রয়োজন আছে। ৫০ বছরের ক্ষিধা আছে। আপনার দেয়ার ইচ্ছে ও ক্ষমতা আছে। তাই এ লাইন থেকে আপনাকে ছুটতে দিতে চাই না। কার কাছে চাইবো? দিচ্ছেন দিয়ে যান। ধন্যবাদ।’



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও