ফুটবলে কিংব্যাক নারায়ণগঞ্জের সেই মোনেম মুন্না

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:২০ পিএম, ৯ জুন ২০২১ বুধবার

ফুটবলে কিংব্যাক নারায়ণগঞ্জের সেই মোনেম মুন্না

মোহাম্মদ মোনেম মুন্না বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার। মোনেম মুন্না নামেই সুপরিচিত ছিলেন দেশ বিদেশে। ভক্তদের কাছে কিংব্যাক নামেই পরিচিত মুন্না। তাঁর খেলোয়াড়ি জীবনের ১৫ বছরের বেশির ভাগ সময় ঢাকা আবাহনীর হয়ে একজন রক্ষণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলে ছিলেন। তিনি মূলত একজন কেন্দ্রীয় রক্ষণভাগের খেলোয়ার ছিলেন। ৯ জুন বাংলাদেশের জাতীয় ফুটবল দলের এই কিংবদন্তীর জন্মদিন। ১৯৬৬ সালের ৯জুন তিনি নারায়ণগঞ্জের বন্দরে জন্মগ্রহণ করেন। ২০০৫ সালের ১২ ফেব্রুয়ারী মাত্র ৩৮ বছর বয়সে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। বাংলাদেশের ফুটবল ইতিহাসে সর্বপ্রথম আর্ন্তজাতিক শিরোপা ঘরে এসেছিল এই মোনেম মুন্নার হাত ধরে। এসে ছিল সাফ গেমসের রানার আপের ট্রফি।

ফুটবল খেলোয়ার হিসেবে মোনেম মুন্নার আর্ভিবাব অনেকটাই চমকপ্রদ ছিল। নারায়ণগঞ্জ জেলা দলের সাথে বাংলাদেশ জাতীয় দলের এক প্রীতি ম্যাচে হঠাৎ নারায়ণগঞ্জের কোচ ১৪ বছর বয়সী এক কিশোরকে মাঠে নামিয়ে দেন। কোচের এমন হটকারী সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ গ্যালারীতে উপস্থিত বাফুফের উর্ধতন কর্মকর্তারা। সবাইকে অবাক করে নজরকাঁড়া পারফরম্যান্স করে সেই ১৪ বছর বয়সী কিশোর। সেদিনের সেই কিশোর বাংলাদেশ ফুটবল ইতিহাসের সবচেয়ে সেরা ও জনপ্রিয় ফুটবলার মোনেম মুন্না।

১৯৮০-৮১ মৌসুমে পাইওনিয়ার ফুটবল লীগে নিজের প্রতিভার স্বাক্ষর রাখেন মোনেম মুন্না। এর পরের বছর যোগ দেন দ্বিতীয় বিভাগের দল শান্তিনগরে। পেশাদার ফুটবলের অভিষেকের পর আর পিছিয়ে ফিরে তাকাতে হয় নাই।

১৯৮৩-৮৫ সাল পর্যন্ত খেলেছেন মুক্তিযুদ্ধা সংসদের হয়ে। ১৯৮৬ সালে যোগদেন বাদ্রার্স ইউনিয়নে।

নিজের ফুটবল প্রতিভা দিয়ের নজর কাড়েন ঢাকা আবাহনীর কর্মকর্তাদের। ১৯৮৭ সালে যোগ দেন ঢাকা আবাহনীতে। ফুটবল ক্যারিয়ারে পুরোটায় ছিলেই আকাশী নীল শিবিরে। হয়ে উঠেছিলেন ঢাকা আবাহনীর পোস্টার বয় ও সমর্থক দের নয়নের মনি।আবাহনী আর মুন্না একে অপরের পরিপূরক ছিলেন। আবাহনী ছিলো তার পুরো হৃদয় জুড়ে।

১৯৮৭-১৯৯১ সাল পর্যন্ত খেলেছেন ঢাকা আবাহনী ক্লাবের হয়ে। ফুটবলার মুন্নার নাম ছড়িয়ে পড়েছিল দেশে বিদেশে। আবাহনীর হয়ে দুরন্ত ফর্মে থাকা অবস্থায় কলকাতা জায়ান্ট ইস্ট বেঙ্গলে নাম লেখান বাংলাদেশ ফুটবলের গোল্ডেন বয় মুন্না। ১৯৯১ এবং ১৯৯৩ সালে কলকাতা ইস্ট বেঙ্গল হয়ে জয় করেন লীগ শিরোপা ও ফেডারেশন কাপ। মুন্নার পায়ের জাদুতে বিহ্বল ইস্ট বেঙ্গল সাপোর্টাররা আজও খবর নেয় তাদের প্রিয় মুন্না দার।

পরবর্তীতে ১৯৯৩-১৯৯৮ সাল পর্যন্ত টানা ৫ বছর আবারো ঢাকা আবাহনীর হয়ে মাঠে পায়ের জাদু দেখিয়েছেন তিনি। ১৯৯৯ সালে আবারো যোগদেন কলকাতার ইষ্টবেঙ্গল ক্লাবে।

১৯৮৬-১৯৯৭ পর্যন্ত ছিলেন বাংলাদেশে জাতীয় ফুটবল দলের নিয়মিত খেলোয়ার। বাংলাদেশের ফুটবলকে তিনি বহুদূর এগিয়ে নিয়ে গেছেন। অনেকে তাঁকে বাংলাদেশের ম্যারাডোনা বলেও সম্বোধন করতো।

১৯৮৬ সালে, মুন্না আন্তর্জাতিক ফুটবলে বাংলাদেশের হয়ে অভিষেক করেছিলেন। তিনি তিনবার জাতীয় দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছিলেন। ১৯৯৫ সালে তার নেতৃত্বে বাংলাদেশ মিয়ানমারে অনুষ্ঠিত ৪ জাতির টাইগার ট্রফি জয়লাভ করেছিল, যা বাংলাদেশের প্রথম আন্তর্জাতিক শিরোপা জয় ছিল। তার অধিনায়কত্বেই ১৯৯৫ সাফ গেমসে বাংলাদেশ রানার-আপ হয়েছিল।

১৯৯৭ সালের ৩১শে মার্চ তারিখে মুন্না ৩০ বছর বয়সে বাংলাদেশের তার সর্বশেষ ম্যাচটি খেলে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসর গ্রহণ করেছিলেন। সৌদি আরবের জেদ্দার প্রিন্স আব্দুল্লাহ আল ফয়সাল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত মালয়েশিয়ার বিরুদ্ধে উক্ত ম্যাচে বাংলাদেশ ১-০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছিল, ম্যাচটিতে তিনি পূর্ণ ৯০ মিনিট খেলেছিলেন।

১৯৯০ দশকে সবচেয়ে জনপ্রিয় ফুটবলার ছিলেন মোনেম মুন্না। বহুজাতিক কোম্পানি তৎকালীন লিভার ব্রাদার্স বর্তমানে ইউনিলিভার তাদের কোম্পানির ব্র্যান্ড প্রতিনিধি করেন। ৯০ দশকে বিটিভিতে মুন্নার অভিনয় করা বিভিন্ন বিজ্ঞাপন প্রচারিত হত।

১৯৯৭ সালে পেশাদার ফুটবলকে বিদায় জানান মোনেম মুন্না। প্রিয় বুটজোড়া খুলে রাখলেও আকাশি নীল জার্সির প্রতি ভালোবাসা থেকে আবাহনীর ম্যানেজার হিসাবে কাজ করে যান মুন্না। ১৯৯৯ সালে তিনি কিডনি রোগে আক্রান্ত হন। জটিল কিডনি রোগে আক্রান্ত হয়ে কিডনি বিকল হয়ে যায় কিং ব্যাক মুন্নার। ছোটবোনের কিডনি তার দেহে প্রতিস্থাপন করা হয়। ২০০৪ সালে দেহে মরণব্যাধি ধরা পড়ে। ২০০৫ সালের ১২ ফেব্রুয়ারী সকাল ৬ টায় মারা যান এই কীর্তি ফুটবলার।

২০০৮ সালে ঢাকা সিটি কর্পোরেশন মুন্নার স্মরণে ধানমন্ডির ৮ নম্বর সেতুটির নাম রাখে "মোনেম মুন্না সেতু" । ব্যক্তি জীবনে মুন্নার ইয়াসমিন মোনেম সুরভীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে ছিলেন। তাদের উভয়ের ইউসরা মোনেয়া দানিয়া নামে একটি কন্যান্তান এবং আজমান সালিদ নামে একটি পুত্রসন্তান রয়েছে।


বিভাগ : খেলাধুলা


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও